গাইবান্ধার সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের শাখা থেকে ভুলে অন্য একাউন্টে চলে যাওয়া ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকার রহস্য উন্মোচন গ্রেফতার ১ পিবিআই এর সংবাদ সম্মেলন - দৈনিক আজকের দুর্নীতি
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১১ আগস্ট ২০২২

গাইবান্ধার সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের শাখা থেকে ভুলে অন্য একাউন্টে চলে যাওয়া ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকার রহস্য উন্মোচন গ্রেফতার ১ পিবিআই এর সংবাদ সম্মেলন

দৈনিক আজকের দুর্নীতি
আগস্ট ১১, ২০২২ ১২:০২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আব্দুল মুনতাকিন জুয়েল

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধা জেলা শহরের সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের শাখা থেকে ভুলে অন্য একাউন্টে চলে যাওয়া ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকার রহস্যের জট খুলতে শুরু করেছে। সেই সাথে টাকা চলে যাওয়া অ্যাকাউন্টধারী ব্যবসায়ী আবু তাহেরকে আটক করেছে পিবিআই। উদ্ধার করা হয়েছে ৩০ লাখ টাকা।
বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) দুপুরে এসব তথ্য জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন গাইবান্ধার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পুলিশ সুপার এআরএম আলিফ।সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার এআরএম আলিফ বলেন, গত ৬ জুলাই ডাচ-বাংলা ব্যাংকের গাইবান্ধা শাখার এক কর্মকর্তা সোনালী ব্যাংক গাইবান্ধা শাখায় ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকার ভাউচার জমা দেন। ওই টাকা ডাচ-বাংলা ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের একাউন্টে ট্রান্সফার হওয়ার কথা থাকলেও তা জমা হয় ঢাকার আমির ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি অ্যাকাউন্টে।

গত ৪ আগষ্ট ব্যাংকের রুটিন চেক করার সময় ঘটনাটি ব্যাংক ম্যানেজারের নজরে আসে। এরপর টাকা চলে যাওয়া অ্যাকাউন্টের অ্যাকাউন্টধারী আবু তাহেরের নম্বরে ফোন করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। সেই সাথে অ্যাকাউন্ট চেক করে তাৎক্ষণিক ৩ কোটি ১০ লাখ তুলে নেয়ার তথ্য পাওয়া যায়। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট সোনালী ব্যাংক ম্যানেজার জাহিদুল ইসলাম ওই টাকা উদ্ধারের উদ্দেশ্যে ঘটনাটি লিখিতভাবে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) অবহিত করেন।

পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রযুক্তি ও বিভিন্নভাবে অনুসন্ধান করে ঘটনার রহস্য উদঘাটনে আবু তাহেরকে গত ৯ আগষ্ট নোয়াখালী থেকে আটক করা হয়। জানা গেছে, আটককৃত আবু তাহের একজন আদম ব্যাপারী। তিনি আমির ইন্টারন্যাশনালের স্বত্তাধিকারী। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

মূলত, একটি ডিজিট ভুল হওয়ায় ওই টাকা আবু তাহেরের অ্যাকাউন্টে জমা হয়। ওই অ্যাকাউন্টটি চেক করে দেখা যায়, আবু তাহের ৩ কোটি ১০ লাখ টাকা উত্তোলন করে বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করেছেন। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, গাইবান্ধা ও ঢাকার একটি টিম ঢাকার দারুল সালাম থানা এলাকায় আবু তাহেরের শ্যালিকার বাসা থেকে ২০ লাখ ও ভাটার থানা এলাকার স্টার্ডাড ব্যাংক থেকে ১০ লাখসহ মোট ৩০ লাখ টাকা উদ্ধার করে। এছাড়া বাকী ১৫ লক্ষ টাকা আমির ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক হিসাবে জমা আছে। অবশিষ্ট ২ কোটি ৮০ লাখ টাকা উদ্ধারে আবু তাহেরকে জিজ্ঞাসাবাদসহ তৎপরতা চালানো হচ্ছে।
পুলিশ সুপার জানান, এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট সোনালী ব্যাংক গাইবান্ধা শাখার ম্যানেজার মো. জাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আটককৃত আবু তাহেরকে সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।