নিষিদ্ধ হলো চিনা কোম্পানির দুটি ফোন OnePlus ও Oppo - দৈনিক আজকের দুর্নীতি
ঢাকামঙ্গলবার , ১২ জুলাই ২০২২

নিষিদ্ধ হলো চিনা কোম্পানির দুটি ফোন OnePlus ও Oppo

অনলাইন ডেস্ক
জুলাই ১২, ২০২২ ৯:১৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ফের একবার মুখ থুবড়ে পড়ল আরও দুটি চিনা স্মার্টফোন কোম্পানি। Oppo-র বিরুদ্ধে পেটেন্ট আইন ভঙ্গের অভিযোগ করেছিল Nokia। স্থানীয় আদালতে মামলা শুরু হয়। এই মামলার রায় গিয়েছে Nokia-র পক্ষে। এর ফলে গোটা দেশে OnePlus ও Oppo ফোন বিক্রি নিষিদ্ধ হয়েছে। পরবর্তী রায় প্রকাশিত হওয়া পর্যন্ত এই রায় বহাল থাকবে। ঘটনা জার্মানির (Germany), সেই দেশের স্থানীয় আদালত এই রায় দিয়েছে।
ফের একবার মুখ থুবড়ে পড়ল আরও দুটি চিনা স্মার্টফোন কোম্পানি। এবার জার্মানিতে (Germany) আইনি সমস্যার সম্মুখীন Oppo ও OnePlus। Nokiamob.net ওয়েবসাইটে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী ম্যানহাইম স্থানীয় আদালত Nokia -র পক্ষে রায় রিয়েছে। Oppo-র বিরুদ্ধে পেটেন্ট আইন ভঙ্গের অভিযোগ করেছিল Nokia। Oppo ছাড়াও চিনা কম্পানি OnePlus -এর বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ তুলেছিল ফিনল্যান্ডের কোম্পানিটি। এই দুই সংস্থার বিরুদ্ধেই আদালতে জয় পেয়েছে Nokia। 2021 সালে এই দুই চিনা সংস্থার সঙ্গে আলোচনায় সমাধান না পেয়ে চারটি দেশে আইনি পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল Nokia। আদালতের সিদ্ধান্তে জার্মানিতে Oppo ও OnePlus ফোন বিক্রি নিষিদ্ধ হয়েছে।এর ফলে জার্মানিতে Oppo ও OnePlus ফোন বিক্রি করা যাবে না। ফলে জার্মানরা এই দুই ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন ব্যবহার থেকে বঞ্চিত হবেন। আমাতত প্রথম মামলায় জয়ী হয়েছে Nokia। যদিও এই দুই কোম্পানির মধ্যে লম্বা আইনি লড়াই চলতে থাকবে। পরবর্তী শুনানি না হওয়া পর্যন্ত Oppo ও OnePlus ফোন বিক্রি বন্ধ থাকবে জার্মানিতে। অর্থাৎ পরবর্তী মামলার রায় Oppo ও OnePlus -এর পক্ষে এলে সেদেশে ফের ফোন বিক্রি করতে পারবে চিনের কোম্পানিটি।কেন মামলা করেছে Nokia?
2021 সালে Oppo-র বিরুদ্ধে পেটেন্ট লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেছিল নোকিয়া। সেই সময় ফ্রান্স, জার্মানি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত সহ ইউরোপ ও এশিয়ার একাধিক দেশে আইনি পদক্ষেপ নিয়েছিল ফিনল্যান্ডের সংস্থাটি। Nokia-র অভিযোগ কোন রকম অনিমতি ছাড়াও Oppo স্মার্টফোনে Wifi স্ক্যানিংয়ের এমন প্রযুক্তিও ব্যবহার হয়েছিল যে পেটেন্ট নোকিয়ার দখলে রয়েছে।Nokia দাবি করেছে এই বিষয়ে Oppo তাঁদের “নিরপেক্ষ ও ন্যায্য” দাবি প্রত্যাক্ষাণ করেছে। “আমরা Oppo-র সঙ্গে চুক্তি নবীকরনের জন্যব আলোচনা করেছিলাম। দুর্ভাগ্যবসত, সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিল Oppo। এর পরেও আমরা বন্ধুত্বপূর্ণ সমাধানের প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু সাড়া না মেলায় আমরা শেষ উপায় হিসাবে আইনি পদক্ষেপ নিয়েছি,” জানিয়েছে Nokia। প্রসঙ্গত 2018 সালে Nokia-র সঙ্গে Oppo-র একটি চুক্তি হয়েছিল। 2021 সালের জুনে এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছিল।কী বলছে Oppo? আমরা নিজেদের ও তৃতীয় পক্ষের ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি রাইটসকে সম্মানের সাথে রক্ষা করি। ইন্ডাস্ট্রি পেটেন্ট লাইসেন্সিং সহযোগিতার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ আমাদের কোম্পানি,” জানিয়েছে Oppo। এইতবে এই প্রথম নয়, Oppo-র আগে পেটেন্ট লঙ্ঘনের কারণে Nokia-র আইনি পদক্ষেপের ফলে 2 বিলিয়ন মার্কিন ডলার জরিমানা দিয়েছিল Apple। এছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, ভারত ও জার্মানিতে Lenovo-র বিরুদ্ধেও আইনি পদক্ষেপ নিয়েছিল Nokia। পরে 2022 সালের এপ্রিলে দুই কোম্পানির বসে সমস্যার সমাধান করেছিল।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।