নিয়ামতপুরে পটল গাছের সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা - দৈনিক আজকের দুর্নীতি
ঢাকারবিবার , ২৪ জুলাই ২০২২

নিয়ামতপুরে পটল গাছের সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা

দৈনিক আজকের দুর্নীতি
জুলাই ২৪, ২০২২ ১২:৩৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার কুমরইল গ্রামের মাঠে রাতের আঁধারে এক বর্গাচাষির প্রায় ৮ কাঠা জমিতে বেড়ে ওঠা পটল গাছ কেটে ফেলেছে দুবৃর্ত্তরা। সোমবার রাতের কোনো এক সময় দুবৃর্ত্তরা পটল গাছগুলো কেটে ফেলে।

জানা যায়, কৃষক মোসলেম আলী জমি বর্গা নিয়ে আতশী আবাদ চাষাবাদ করেন। উপজেলার তিলিহারী গ্রামের মাসুদ রানার কাছ থেকে প্রায় ৫ বিঘা জমি এক বছরের জন্য বর্গায় নেন। ৮ কাঠা জমি উঁচু জমি বলে তিনি সেই জমিতে পটল গাছ রোপন করেন।

বেশ কয়েকদিন ধরে ফল আসা শুরু করে । সোমবার বিকালে মোসলেম আলী তার লাউ ক্ষেতে কীটনাশক স্প্রে করে সন্ধ্যায় বাড়িতে যান। বুধবার সকালে ক্ষেতে গিয়ে দেখতে পান পাতাগুলো শুকিয়ে যাচ্ছে। বাঁশের মাচার নিচে তাকিয়ে গাছগুলোর গোড়া কাটা অবস্থায় দেখতে পান।

স্থানীয় উপস্থিত বেশ কিছু লোকজন বলেন, এক জনের সঙ্গে আরেক জনের শত্রুতা থাকতেই পারে, তবে ফসলের সঙ্গে কেন? এর একটা সমাধান হওয়া দরকার।

স্থানীয় কিছু ব্যক্তিবর্গরা বলেন, যত বড় অপরাধী মোসলেম বা মাসুদ রানা হোক না কেন, তার ফসল কেটে ফেলা ঠিক হয়নি। যে তার ফসল কেটে ফেলেছে তারা মোসলেম আলীর পেটে লাথি মেরেছে। ফসল কাটার বিচার হওয়া দরকার।

মোসলেম আলী বলেন, ছোট বেলা থেকে দরিদ্রতার মাঝে বড় হয়েছি। কাউকে তুই বলেও গালমন্দ করিনি। সংসারে ছেলে-মেয়েদের মুখে দু’বেলা খাবার জোগাতে প্রতি দিন হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করি।
আজ সেটিও তাদের সহ্য হলো না। আমার সব আশাই আজ ভেস্তে গেল।

থানার অভিযোগ সুত্রে জানা যায় উপজেলার কুমরইল গ্রামের (১) লক্ষীরাম, পিতাঃ মৃত সামু সাওতাল (২) শ্রী রবিদাস, পিতাঃ লক্ষীরাম (৩)কালীদাস, পিতাঃ মঙ্গল চড়ে সর্ব সাং কুমরইল (বেলডাঙ্গা) থানা নিয়ামতপুর জেলা নওগাঁ গনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন মোসলেম আলী।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, কৃষক মোসলেম আলী অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।